1. admin@agamirdorpon.com : admin :
  2. agamirdarpon@gmail.com : News admin :
মহেশপুর কপোতাক্ষ নদের দুই ধারে লাগানো গাছের চারাগুলোর অস্তিত্ব নেই 
শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নিয়োগ বাণিজ্য আর্থিক অনিয়মের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক মো.আবু তৈয়ব বরখাস্ত বোরহানউদ্দিনে মাদক মামলার ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করল পুলিশ কাছিপাড়ার অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহযোগিতা করলেন সমাজসেব হাসীব আলম তালুকদার হরিণাকুণ্ডুতে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা ঠাকুরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু ফুলবাড়ীতে বোরোধান সংগ্রহে কৃষক নির্বাচন লটারী অনুষ্ঠিত। আবারও উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান ফুলবাড়ী ডিগ্রী কলেজ ফুলবাড়ী উপজেলার মাধ্যমিক পযার্য়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাশিপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ‍্যালয়। অপরাধ প্রতিরোধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান জানালেন ওসি মুরাদ প্রবাস প্রজন্মে শেখ হাসিনার নেতৃত্ব-গুণ ছড়িয়ে দেয়ার সংকল্প শেখ হাসিনা পরিষদ’র যুক্তরাষ্ট্র শাখার পরিচিতি সভায়

মহেশপুর কপোতাক্ষ নদের দুই ধারে লাগানো গাছের চারাগুলোর অস্তিত্ব নেই 

  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ৮ মে, ২০২৩
  • ৩১ Time View

এস এম আব্দুর রাজ্জাক রাজন

ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের কপোতাক্ষ নদ খনন কাজ চলমান। এক বছর আগে নদী খননের পর দুই ধারে সবুজ বেষ্টুনি গড়ে তোলার জন্য বৃক্ষরোপণ করা হয়েছিলো। কিন্তু বর্তমানে সেসব গাছের চারাগুলো কোন চিহ্ন নেই; নদের দুই ধারে এখন শুরু গোচারণ ভূমি।এলাকাবাসী ও পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে প্রকাশ, গত ২০২১-২২ অর্থ বছরে কপোতাক্ষ খননের কার্যক্রম শুরু হয়। জানা গেছে, কোটচাদপুর, জীবননগর ও মহেশপুর উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কপোতাক্ষ নদ ১৩টি প্রকল্পের মাধ্যমে খনন করা হচ্ছে। প্রথম বছর মহেশপুরের ভালাইপুর-মহেশপুর প্রায় দুই কিলোমিটার খননের কাজ শেষ করে বাদল নামে এক ঠিকাদার। ওই বছরই নদের দুই ধারে সবুজ বেষ্টুনি গড়ে তোলার জন্য বিভিন্ন জাতের বৃক্ষরোপণ করা হয়। সরজমিন ঘুরে দেখা গেছে, নদের দুই ধারে লাগানো গাছের চারা গুলোর কোন অস্তিÍত্ব নেই। ওই স্থানে বর্তমানে এলাকার মানুষ গরু-ছাগল চরায়।এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আসাফুর দৌলার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক আব্দুর রাজ্জাকের কাছ থেকে সাব-কন্টাক্ট নিয়ে তাজওয়ার্ড ট্রেডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান নদ খননের কাজ করছেন। তিনি আরো বলেন নদীর প্রস্থ ১৩০-১৪০ ফুট চওড়া হবে এবং নদের গভীরতা হবে ৩ থেকে ৭ ফুট। এছাড়াও নদের দুই ধারের জমিতে সবুজ বেষ্টুনি গড়ার লক্ষ্যে বৃক্ষরোপণ করা হবে। গাছের চারা গুলোকে ৩ বছর ধরে রক্ষণাবেক্ষণ করবেন এবং বৃক্ষরোপণের ৬ মাস পর গাছগুলোকে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিকট বুঝিয়ে দিবেন। কিন্তু সময় পেরিয়ে গেলেও খনন কাজ শেষ হওয়া স্থানে লাগানো চারা গুরো পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বুঝিয়ে দেইনি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারীর মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তাদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

June 2023
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Design & Developed By BD IT HOST